হিরো আলম আপিলে পেলেন যে ফল বাংলাদেশ News

হিরো আলম আপিলে পেলেন যে ফল

ইন্টারনেট জগতে সুপরিচিত বগুড়ার আশরাফুল ইসলাম আলম ওরফে হিরো আলমের নির্বাচনী লড়াই করা নিয়ে সংশয় থেকেই যাচ্ছে। মনোনয়নপত্র দাখিলের পর তাঁর প্রার্থিতা অবৈধ বলে ঘোষণা করেছিলেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। তার বিরুদ্ধে তিনি আপিল করেছিলেন। আজ বৃহস্পতিবার আপিলের ফলাফল জানা গেছে।

বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে হিরো আলমসহ ১৬ জন মনোনয়ন দাখিল করেছিলেন। যাচাই-বাছাইয়ের দিনে হিরো আলমসহ সাতজনের মনোনয়ন বাতিল করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ।

কারণ হিসেবে তখন রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেছিলেন, ‘কেউ স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে মনোনয়ন নিলে তাঁকে তাঁর নির্বাচনী এলাকার মোট ভোটারের এক শতাংশের স্বাক্ষর লাগে। তবে আশরাফুল ইসলাম আলম ভোটারদের স্বাক্ষরসংবলিত যে তালিকা জমা দিয়েছেন, তা যাচাই করে দেখা গেছে তিনি ভুয়া ভোটারদের তালিকা জমা দিয়েছেন।’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে হিরো আলম হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন কিনেছিলেন। কিন্তু দলটির মনোনয়ন না পেয়ে বগুড়া-৪ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন সিডি ব্যবসায়ী থেকে তারকা বনে যাওয়া হিরো আলম।

মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ার পর হিরো আলম বলেন, ‘ষড়যন্ত্র করে মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। আমি নিয়ম মেনেই সব দাখিল করেছিলাম। কিন্তু ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। কোনো ষড়যন্ত্রে মাঠ ছাড়ব না। আপিল করব। আগেই বলেছিলাম শেষ দিন পর্যন্ত মাঠে থাকব, এখনো সে সিদ্ধান্তে অটল রয়েছি।’

আজ সকাল থেকে রাজধানীর নির্বাচন কমিশন ভবনে আপিলের শুনানি শুরু হয়। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বাধীন কমিশন রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন কমিশন ভবনের দশম তলায় স্থাপিত এজলাসে আপিল শুনানি চলছে।

৪৩ নম্বরে হিরো আলমের শুনানি হয়। এ সময় তিনি সেখানে উপস্থিত থেকে তাঁর যুক্তি তুলে ধরেন। শুনানি শেষে নির্বাচন কমিশন তাঁর মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করেন।

এর মধ্য দিয়ে হিরো আলমের নির্বাচনী লড়াইয়ে অবতীর্ণ হওয়ার ক্ষেত্রে আরো প্রতিবন্ধকতার তৈরি হলো। তবে তিনি প্রার্থিতা ফিরে পেতে চাইলে হাইকোর্টে আপিল করতে পারবেন। তিনি আপিল করবেন কি না এ ব্যাপারে এখনো কিছু জানাননি।

Other News