যৌন নিপীড়নে ৪ ফিলিপিনি নারীর আত্মহত্যা, দুতার্তে-কুয়েত উত্তেজনা! আন্তর্জাতিক News

যৌন নিপীড়নে ৪ ফিলিপিনি নারীর আত্মহত্যা, দুতার্তে-কুয়েত উত্তেজনা!

কুয়েত প্রবাসী ফিলিপিনোদের অবস্থা সম্পর্কে দেশটির প্রেসিডেন্ট দুতার্তের মন্তব্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কুয়েতের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী খালেদ আল জারাল্লাহ। এ খবর দিয়েছে কুয়েত নিউজ এজেন্সি, কুনা।

গতকাল (শনিবার) ফিলিপাইনের শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় ঘোষিত এক প্রশাসনিক নির্দেশনায় জানানো হয়, কয়েকজন ফিলিপিনোর মৃত্যুর তদন্ত স্থগিত হওয়ার প্রতিক্রিয়ায় তাদের বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রশাসন কুয়েতে শ্রমিক পাঠানোর প্রক্রিয়া বন্ধ রেখেছে।

গত বৃহস্পতিবার এপি পরিবেশিত খবরে বলা হয়, ফিলিপিনো প্রেসিডেন্ট কুয়েতে ফিলিপিনি শ্রমিক পাঠানোর ওপর পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকি দিয়েছেন। সাম্প্রতিক সময়গুলোতে কুয়েত প্রবাসী ফিলিপিনি শ্রমিক বিশেষ করে নারী শ্রমিকদের ওপর যৌন নিপীড়নের প্রতিক্রিয়ায় ফিলিপিনি প্রেসিডেন্ট রদরিগো দুতার্তে অমন ঘোষণা দেন। প্রসঙ্গত, যৌন নিপীড়নের শিকার বেশ কয়েকজন ফিলিপিনি নারী সম্প্রতি কুয়েতে আত্মহত্যা করেন।

দুতার্তে কুয়েতে অবস্থানরত তার দেশের দূতাবাস কর্মকর্তাদের বলেন কুয়েতি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করতে। তিনি বলেন, এ ধরনের নিপীড়ন মেনে নেওয়া যায় না এবং অত্যাচার বন্ধ না হলে সেদেশে ফিলিপিনি শ্রমিকদের কাজের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারে তার সরকার।

দুতার্তে আরো বলেন, আমি কুয়েতের সঙ্গে কোনো বিবাদ চাই না। আমি দেশটির নেতৃবৃন্দকে শ্রদ্ধা করি। কিন্তু এ বিষয়ে তাদের কিছু একটা করতে হবে। কারণ, আরো অনেক ফিলিপিনি নাগরিকই সেখানে আত্মহত্যা করে ফেলতে পারে।

ক্ষুব্ধ দুতার্তে আরো বলেন, আমরা গত কয়েক মাসে চারজন ফিলিপিনি নারীকে হারিয়েছি। কুয়েতে এমন সব সময়েই হয়।

বেসরকারি মতে, প্রায় আড়াই লাখ ফিলিপিনি শ্রমিক কুয়েতে কাজ করেন। তবে কুয়েতি কর্তৃপক্ষের হিসেবে সেখানে আছে এক লাখ ৭০ হাজার ফিলিপিনি। ফিলিপাইন জনশক্তি রপ্তানির ক্ষেত্রে শীর্ষ পর্যায়ের একটি দেশ। প্রবাসীদের অর্থ ফিলিপিনি অর্থনীতির অন্যতম চালিকা শক্তি।

নিজদেশে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে খড়গ হস্ত দুতার্তে সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যে তার দেশের শ্রমিকদের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘন ও যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে ওঠেন।

তবে প্রবাসী শ্রমিকদের জন্য দুতার্তের অমন আবেগময় আর আক্রমণাত্মক বক্তব্য তার দেশবাসীর প্রশংসা কুড়ালেও তা অসন্তোষ আর অস্বস্তির সৃষ্টি করেছে কুয়েতি কর্তৃপক্ষের জন্য। এরই জের ধরে গত শুক্রবার কুয়েতি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আল জারাল্লাহ মুখ খুললেন। তিনি জানান, তার মন্ত্রণলায় দ্রুতই ফিলিপিনি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানতে চেয়েছে তাদের প্রেসিডেন্টর বক্তব্যের পেছনের উদ্দেশ্য কী? তারা ওই বক্তব্যে ‘ভ্রান্ত ধারণার’ খণ্ডন করতে চান।

জারাল্লাহ বলেন, কুয়েতি প্রবাসী ফিলিপিনির সংখ্যা ১ লাখ ৭০ হাজার ছাড়িয়েছে। সে মোতাবেক প্রেসিডেন্টের বক্তব্যে যে চারজনের ঘটনা কুয়েতে ফিলিপিনি শ্রমিক সমাজের বাস্তব অবস্থার উদাহরণ হিসেবে ব্যবহার হতে পারে না।

২০১৬ সালে ব্যাপক জনসমর্থন নিয়ে ক্ষমতায় এসেই দুতার্তে মাদক নির্মূল অভিযান শুরু করেন। মানবাধিকারকর্মী ও পশ্চিমা সূত্রগুলোর মতে, ওই অভিযানে এরই মধ্যে বিনা বিচারে কয়েক হাজার ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, কুয়েত গত কয়েক বছর ধরে বৈধপন্থায় বাংলাদেশি শ্রমিক নেওয়া বন্ধ রেখেছে কুয়েত। বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের অনকে অনুরোধেও মন গলছে না কুয়েতির। আরব টাইমস, কুয়েত টাইমস, এপি

Other News