শিশুর গলা ব্যথা? চলুন জেনে নেই কী করতে হবে স্বাস্থ্য News

শিশুর গলা ব্যথা? চলুন জেনে নেই কী করতে হবে

শিশুদের ঠাণ্ডা লাগা মানেই গলা ব্যথা। গলা ব্যথা বা সোর থ্রোট শিশুদের একটি সাধারণ উপসর্গ। সাধারণত পাঁচ থেকে আট বছর বয়সী শিশুরা এ সমস্যায় বেশি ভুগে থাকে।
.
শিশুদের খাদ্যনালির ওপরের অংশ, টনসিল ও তার চারপাশের অংশে প্রদাহের কারণে এটা হয়ে থাকে।


বিশেষজ্ঞদের মতে, ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাসজনিত সংক্রমণের কারণে প্রদাহ হয়। ৩০ শতাংশ ক্ষেত্রে দায়ী জীবাণু হলো গ্রুপ-এ বিটা হিমোলাইটিক স্ট্রেপটোকক্কাস। এটি সংক্রামক। লালা বা শ্লেষ্মার মাধ্যমে ছড়ায়।


গলা ব্যথা খুব বেশি হলে শিশু যদি কান্নাকাটি করে তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে।


তবে ব্যথা যদি অতো গুরুতর না হয়, তাহলে বিশেষজ্ঞরা ঘরে বসেই এর সমাধান করতে কিছু পরামর্শ দিয়েছেন।


নিম্নে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো :


লবণ-পানি : কুসুম গরম পানির মধ্যে লবণ মিশিয়ে কুলকুচি করলে সেটি গলার ফোলাভাব কমায় এবং শ্লেষ্মা দূর করতে সাহায্য করে। ব্যাকটেরিয়া রোধেও এই পদ্ধতি বেশ কার্যকর।


ভিনেগার-মধু : এক কাপ গরম পানিতে ১ টেবিল চামচ আপেল সাইডার ভিনেগার ও ১ টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে শিশুকে পান করতে দিন। এতে সে বেশ উপকার পাবে। এই মিশ্রণটি ব্যকটেরিয়াকে ধ্বংস করে ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।


লজেন্স : শিশুকে ম্যানথল অথবা ইকেলিপটাস রয়েছে সেই ধরনের লজেন্সে বা চকলেট খেতে দিন। এট শিশুর গলা ভিজিয়ে রাখবে, এবং সে আরাম পাবে।


মুরগির স্যুপ : ঠাণ্ডা সমস্যা দূর করতে মুরগির স্যুপ বেশ উপকারী। মুরগির স্যুপ দেহের পুষ্টি জোগায় এবং রোগ প্রতিরোধে কাজ করে।


রসুনের রস : রসুনে ব্যকটেরিয়া ধ্বংস করার পাশাপাশি গলা ব্যথার জন্য দায়ী জীবানুকেও মেরে ফেলে। তাই শিশু রসুন খেতে না চাইলেও তাকে মধুর সঙ্গে মিশিয়ে খাওয়াতে পারেন। বড়রা এমনিই আস্ত রসুনের কোয়া চিবিয়ে খেতে পারেন।


বেকিংসোডা : গলা ব্যথা কমাতে সবচেয়ে ভালো কাজ করে বেকিংসোডা। ১ কাপ গরম পানিতে আধা চা চামুচ লবণ ও আধা চা চামুচ বেকিংসোডা মিশিয়ে মুখের ভিতর রেখে রেখে মিশ্রণটি দিয়ে শিশুকে কুলকুচি করতে হবে দিনে ২/৩ বার।


লবঙ্গ : গলা ব্যথায় লবঙ্গ অনেক আগে থেকেই ব্যবহার হয়ে আসছে। এটি ব্যথা নাশক ও এন্টি-ব্যাকটেরিয়াল গুণ সম্পন্ন।


ডালিম : এটি গলা ব্যথার সংক্রমণের সঙ্গে লড়তে সক্ষম, যা ফোলা কমাতে ও ব্যথা কমাতে কার্যকরী। একটি ডালিম ছিলে এর দানাগুলো বের করে ৩-৪ কাপ পানিতে সিদ্ধ করতে হবে ১৫ মিনিট। এরপর এটি শিশুকে পান করতে দিন।


আদা পানীয় : আদা ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা রোধে বেশ কার্যকরী। ২ ইঞ্চি পরিমাণ লম্বা আদার টুকরা ছিলে ছোট টুকরো করে কেটে থেঁতলে ২-৩ কাপ পানিতে সিদ্ধ করতে হবে ৩-৫ মিনিট। এতে মধু বা লেবু মিশিয়ে শিশুকে দেয়া যেতে পারে।


দারুচিনি চা : এই মসলা স্বাস্থ্যকর ও সংক্রমণরোধী। ১-২টি দারিচিনি টুকরা নিয়ে ১-২ কাপ পানিতে সিদ্ধ করুন। এটি চায়ের মতো শিশুকে পান করতে দিন। এই চায়ে শিশুর গলা ব্যথা কমে যাবে এবং সে আরাম পাবে।

 

Other News